আকাশপথে ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য

পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতসহ মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের সব রুটে আকাশপথের ভাড়া নিয়ে চলছে অরাজকতা ও নৈরাজ্য। কোনো কারণ ছাড়া বিমান সংস্থাগুলো হঠাৎ এসব রুটে ভাড়া হাঁকাচ্ছে দ্বিগুণের বেশি। ভারতের সব রুটে ভাড়া বেড়েছে ৩-৪ গুণ। কোনো কোনো দিন এই ভাড়া ৮/১০ গুণও গুনতে হচ্ছে যাত্রীদের।

এপ্রিল পর্যন্ত সৌদি আরবের টিকিট নেই ট্রাভেল এজেন্টগুলোর কাছে। সরাসরি এয়ারলাইন্সগুলোয় এ রুটের ভাড়া দিতে হয় ৩ গুণ বেশি। ৪০ হাজার টাকা ঢাকা-রিয়াদ রুটে বিমান ভাড়া এখন ৯২ হাজার থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। তাও মিলছে না। ৪৫ হাজার টাকার ঢাকা-দুবাইয়ের রিটার্ন ভাড়া এখন ৯০ হাজার থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা।

বাহরাইন, কুয়েত, কাতার, আমিরাতসহ মধ্যপ্রাচ্যের সব রুটের ভাড়া নিয়ে এভাবে চলছে অরাজকতা। চিকিৎসা ও স্টুডেন্ট ভিসাধারী ভারতগামী যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। একদিকে টিকিট নেই, অপরদিকে টিকিটের দাম ৮/১০ গুণ বেশি। সংশ্লিষ্ট যাত্রীদের অভিযোগ-ভিসার শর্ত হিসাবে আকাশপথে যাওয়ার কথা উল্লেখ থাকায় এই ভয়াবহ অবস্থা তৈরি হয়েছে। ভিসায় আকাশপথ উল্লেখ থাকায় অন্য কোনো পথে যাওয়ারও সুযোগ নেই যাত্রীদের।

এদিকে টিকিটের উচ্চমূল্যের পাশাপাশি কোনো কোনো দেশের টিকিট হাওয়া হয়ে গেছে। আগামী জুলাই পর্যন্ত চীনের কোনো রুটে টিকিট নেই। খোদ চীনের নাগরিকরা তাদের দেশে ফিরতে পারছেন না টিকিট না থাকায়। বাংলাদেশ থেকে দুটি এয়ারলাইন্স চীনের কয়েকটি রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করলেও আগামী জুলাই পর্যন্ত তাদের হাতে কোনো টিকিট নেই। চীনগামী বাংলাদেশি নাগরিকদের ভ্রমণ তো বন্ধই রয়েছে। এই অবস্থায় চীনের সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক রয়েছে এরকম হাজার হাজার বাংলাদেশিকে চরম বিপাকে পড়তে হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.