জেলে বসে নৌকার মনোনয়ন পেলেন ধর্ষণ মামলার আসামি

জেলে বসে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন ধর্ষণ মামলার এক আসামি। মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত যেসব প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে তাঁর মধ্যে ওই আসামি রয়েছেন। ওই প্রার্থী মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার কোলা ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান মীর লিয়াকত আলী।

জানা যায়, ২০১৭ সালে সিরাজদিখান উপজেলার কোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মীর লিয়াকত আলীর খাসকামরায় বোলতলী স্কুলের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষিত হয়। ওই ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করে ধর্ষক। এ ঘটনায় সিরাজদিখান থানায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে ২০১৯ সালে নারী ও শিশু

নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। ওই ধর্ষণ মামলার আসামি হওয়ায় আদালতে হাজিরা দিতে গেলে আদালত চেয়ারম্যান মীর লিয়াকত আলীকে জেলহাজতে পাঠান। বর্তমানে তিনি জেলেই রয়েছেন।এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. লুত্ফর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মীর লিয়াকত আলী সিরাজদিখান উপজেলার কোলা

ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়নটির আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি। তিনি বর্তমানে জেলে আছেন বলে আমরা অবগত আছি। তাঁর পক্ষে তাঁর ছেলে চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে আবেদন জমা দেন। আমরা অন্যদের সঙ্গে তাঁর নামের তালিকাটিও কেন্দ্রে পাঠাই এবং সেখানেও আমরা উল্লেখ করে দিই যে তিনি বর্তমানে জেলে আছেন। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ তাঁকে গতকাল কোলা ইউনিয়নে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে নাম ঘোষণা করেছে।’

মুন্সীগঞ্জ জেলা কারাগারের জেলার আবুল বাশার জানান, তিনি (লিয়াকত) ধর্ষণ মামলায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে কিছুদিন ছিলেন। বর্তমানে তিনি জেলে আছেন, না জামিনে রয়েছেন তা তাঁর জানা নেই।

লিয়াকত আলীর ছোট ভাই মীর জুয়েল জানান, তাঁর বড় ভাই লিয়াকত কিছুদিন ধরে অসুস্থ। বর্তমানে তিনি বিএসএমএমইউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি কথা বলতে পারছেন না। তাঁর ফোন বন্ধ। সুস্থ হয়ে শিগগিরই তিনি এলাকায় ফিরবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *