হাফ ভাড়ার দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা

গণপরিবহনে হাফ ভাড়ার দাবিতে সিটি কলেজ, ধানমন্ডি আইডিয়াল কলেজ ও উদয়ন কলেজসহ আশেপাশের কয়েকটি কলেজের শিক্ষার্থীরা রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে সড়ক অবরোধ করে।আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়।আজ (মঙ্গলবার) দুপুর দেড়টার দিকে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা অবরোধের সমাপ্তি ঘোষণা শেষে সাইন্সলয়াব মোড় থেকে

নীলক্ষেত মোড়ের দিকে যাওয়ার পথে ঢাকা কলেজের সামনে গেলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা লাঠি, বাঁশ, রড ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।এ সময় সাইন্সল্যাব মোড় থেকে এক শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের কিছু নেতা কর্মী মারতে মারতে টেনেহেঁচড়ে ঢাকা কলেজে দিকে নিয়ে যেতে দেখা যায়। হামলায় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত ও

কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।আন্দোলকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার সময় নিউমার্কেট জোনের এডিসি শাহেন শাহ মাহমুদ সহ পুলিশের অনেক কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। এ সময় পুলিশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের থামিয়ে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে দেখা যায়।নিউমার্কেট জোনের এডিসি শাহেন শাহ

যুগান্তরকে বলেন, আন্দোলকারী শিক্ষার্থীরা নীলক্ষেত মোড়ে মিছিল নিয়ে যাওয়ার সময় ঢাকা কলেজের এক শিক্ষার্থীর মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। মোটরসাইকেল ভাঙচুরকে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়। আমরা আইশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে দুপক্ষকে শান্ত করেছি। আপাতত এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।

আরও পড়ুন=২০ দলীয় জোটের শরিক দল লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (একাংশ) মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম বলেছেন, আজকে যে করুণ ইতিহাস ঘটতে যাচ্ছে— খালেদা জিয়া যদি মৃত্যুবরণ করেন, তাহলে একমাত্র সন্তান তারেক রহমান তার (খালেদা জিয়া) মুখ দেখতে পাবেন না। মৃত্যুশয্যায় একজন মা তার সন্তানকে দেখতে পাবেন না, আর আমরা এখনও পিকনিক-পিকনিক আন্দোলন করছি। আমরা আইন বুঝি না, আমরা কোনও উদাহরণ বুঝি না। আমরা নতুন উদাহরণ সৃষ্টির জন্য খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করছি।’মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের আব্দুস সালাম হলে বাংলাদেশ জাতীয় দলের উদ্যোগে ‘খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে’ আয়োজিত

আলোচনা সভায় এলডিপির মহাসচিব এসব কথা বলেন।তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, হয় মরবো না হয় বাঁচবো। মৃত্যুর শপথ নিয়ে রাস্তায় নামতে হবে। রুখে দাঁড়াতে হবে। রুখে দাঁড়িয়ে এই সরকারের পতন ঘটাতে হবে। এই সরকারের পায়ের নিচে সামান্যতম মাটি নেই। দরকার একটা সুনির্দিষ্ট ধাক্কা। ধাক্কা দিলেই এই সরকারের পতন ঘটে যাবে। জনগণের রাজত্ব কায়েম হবে। খালেদা জিয়া মুক্ত হয়ে চিকিৎসা করাতে

পারবেন।’শাহাদাত হোসেন সেলিম আরও বলেন, ‘আমাদের এখনও ঘুরে দাঁড়ানোর সময় আছে। হায়েনার কাছে আমরা জীবন ভিক্ষা চাইলে, জীবন ভিক্ষা পাবো না। এই হায়েনা থেকে মুক্তি পেতে পিকনিক- পিকনিক ধরনের যে আলোচনা সভায় আমরা বক্তব্য রাখছি, আপনারা খোশ গল্প করছেন, আমরা কে আগে বক্তব্য রাখবো, কে পরে বক্তব্য রাখবো আমরা সেটা নিয়ে মাথা ঘামাই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *