পাকিস্তানি পতাকা-জার্সি নিয়ে স্টেডিয়ামে এলে ‘প্রতিরোধের ঘোষণা’

পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ আজ সোমবার শেষ হতে যাচ্ছে। গত দুই ম্যাচে খেলার ফলাফল ছাপিয়ে আলোচনায় ছিল মিরপুর শেরে বাংলার গ্যালারিতে পাকিস্তানের পতাকার ওড়াওড়ি। গুটিকয়েক পাকিস্তানি নাগরিকের পাশাপাশি অনেক বাংলাদেশি নাগরিকও পাকিস্তানের পতাকা হাতে উল্লাস করেছে। যা নিয়ে গত কয়েকদিন মিডিয়া আর সোশ্যাল সাইট তোলপাড়।

মহান মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা চালানো পাকিস্তানিদের সমর্থনে এমন উল্লাস মেনে নিতে পারেনি দেশের সিংহভাগ মানুষ। আজ খেলা শুরুর আগে মিরপুর স্টেডিয়াম গেটের সামনে কিছু তরুণকে দেখা যায় ব্যানার হাতে দাঁড়িয়ে থাকতে। তারা পাকিস্তানি পতাকা নিয়ে স্টেডিয়ামে আসা বাংলাদেশি নাগরিকদের প্রতিরোধের ঘোষণা দেয়। তারা গ্যালারিতে পাকিস্তানি পতাকা ও জার্সি পরিহিত বাংলাদেশি সমর্থক দেখলে প্রতিবাদ জানাবেন বলেন জানান।

‘পাকিস্তানি দালাল রুখবে তারুণ্য’ ব্যানারে অবস্থান নেওয়া ওই সংগঠনের আহ্বায়ক হামজা রহমান অন্তর বলেন, ‘৩০ লাখ শহীদ ও ২ লক্ষাধিক মা-বোনের আর্তনাদের বিনিময়ে পাওয়া স্বাধীনতা। সেই স্বাধীনতার শত্রু যারা আজও রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা চায়নি, ক্ষতিপূরণ দেয়নি। যারা আজেও ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে, তাদের হয়ে এদেশীয় দালাল গোষ্ঠীকে ৭১ এর মতোই প্রতিহত করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ আমরা।’

মিরপুর সরকারি বাংলা কলেজের শিক্ষার্থী মারুফ আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশ পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলছে, নিজের দেশে, নিজের ঘরের মাঠে। কিন্তু যখন দেখি বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে কিছু লোক পাকিস্তানের জার্সি-পতাকা নিয়ে পাকিস্তানকে সমর্থন করে- তখন আর ঘরে বসে থাকা

যায়না। কারণ, এই বাংলাদেশের ৩০ লক্ষ মানুষের প্রাণ নিয়েছে পাকিস্তান। লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে আমরা এই বাংলাদেশ পেয়েছি। তাই আমরা তরুণ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ রক্ষায় নব্য রাজাকারদের প্রতিহত করতে মাঠে এসেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *