চাঁদা না দেয়ায়, হিজড়াদের তাণ্ডবে শিশুর মৃত্যু

মেডিকেলে একটি পরিবারে ৩টি যমজ শিশুর জন্ম হয়। এ ঘটনায় বেশ চাঞ্চল্য তৈরি হলে, ওই বাড়িতে গিয়ে হাজির হয় হিজড়াদের একটি দল। তারা দাবি করেন, ১২০০ টাকা। পরিবারটি গরিব হওয়ায়, তাদের নগদ ৩০০ টাকা আর বাসন-কোসন দেন। এতই বাধে বিপত্তি। শিশুদের কোলে নিয়ে বাজাতে থাকেন ঢোল বাদ্যযন্ত্র। আর এতেই অসুস্থ হয়ে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মালদহের মানিকচকে। ২০ দিনের শিশুর মৃত্যুতে নেমেছে শোকের ছায়া। অভিযুক্ত হিজড়াদের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে মালদহ পুলিশ। খবর: জি২৪ঘণ্টাজানা গেছে, মানিকচকের বাঙাল গ্রামের বাসিন্দা মাম্পি মাঝি। ২৯ অক্টোবর মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ৩ যমজ সন্তানের জন্ম হয় তার পরিবারে। ২ ছেলে ও ১ মেয়ে। জন্মের ২০ দিন পরে বুধবার সকালে শিশুদের শুভকামনা জানাতে বাড়িতে হাজির হন হিজড়াদের একটি দল।

পরিবারটি বলছে, ১২০০ টাকা চেয়েছিলেন হিজড়ারা। কিন্তু এত টাকা তারা কোথায় পাবেন? তাই, নগদ ৩০০ টাকা ও বাসন দেওয়া হয়েছিল হিজড়াদের। দাবি মতো টাকা দিতে না পারায় প্রায় আড়াই ঘণ্টা শিশুদের জিম্মি করে রাখে হিজড়ারা। দীর্ঘ সময়ে শিশুদের খেতে দেওয়া হয়নি। উল্টে শিশুদের কোলে নিয়ে লাগাতার ঢাক-ঢোল বাজানো

হয়। এত অসুস্থ হয়ে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।পরিস্থিতি সামাল দিতে পরিবারটি স্থানীয় এক আশা কর্মীর দ্বারস্থ হন। কিন্তু তাতেও কোনো লাভ হয়নি। এমনকি, ওই আশা কর্মীকেও ফোনে হুমকি দেন হিজড়ারা।পরে খবর পেয়ে মানিকচক থানা-পুলিশ ঘটনাস্থল পৌঁছে গ্রেপ্তার করে অভিযুক্তদের একজনকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *