নাইট কোচে তরুণীকে পর্ন ভিডিও দেখানোর চেষ্টা, কারাগারে যুবক

সিলেটগামী একটি নাইট কোচে সহযাত্রী এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে উত্যক্ত এবং পর্নোগ্রাফি ভিডিও দেখানোর চেষ্টা করায় মো. মাহবুবুর রহমান (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার (১৫ নভেম্বর) রাতে চট্টগ্রাম থেকে সিলেটগামী একটি বাসে এ ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার সকালে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এ দণ্ড দেন। দণ্ড ঘোষণার পর অভিযুক্তকে মৌলভীবাজার কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

হাইওয়ে পুলিশ সিলেট অঞ্চলের পুলিশ সুপার মো. শহিদ উল্লাহ গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। দণ্ডপ্রাপ্ত মাহবুবুর রহমান সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার স্বজনশ্রী গ্রামের বাসিন্দা এবং পেশায় রাজমিস্ত্রি।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ও পুলিশ সূত্র জানা গেছে, ওই তরুণী সোমবার রাতে চট্টগ্রাম থেকে বাসে সিলেটে আসছিলেন। বাসটিতে তার সামনের সিটে বসা মাহবুবুর এক পর্যায়ে তার সিটের স্প্রিং সুইচ টেনে পেছনে হেলিয়ে দেয়। পরে সে মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি চালিয়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে ওই ছাত্রীকে দেখানোর চেষ্টা করে এবং তার উদ্দেশে বারবার অশোভন অঙ্গভঙ্গি প্রকাশ করে। বিষয়টি নিয়ে বাগ্বিতণ্ডা হলে ওই ছাত্রীকে আসন বদলে আরেকজন নারীর পাশের আসনে বসানো হয়।

মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৭টায় মৌলভীবাজারের শেরপুর এলাকায় বাসটি পৌঁছলে মাহবুবুর রহমান গাড়ি থেকে নামতে চাইলে ওই ছাত্রী বাধা দেন। রাতের ঘটনায় ওই যুবকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে গাড়িতে থাকা অন্যান্য যাত্রীদের সহায়তা চান। এ সময় মহাসড়কে টহলরত শেরপুর হাইওয়ে থানার সার্জেন্ট মো. শিবলু মিয়া সেখানে গিয়ে পুরো বিষয়টি শোনেন। পরে তিনি শেরপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবীর হোসেনকে জানান। ওসি সিলেট অঞ্চলের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহিদ উল্লাহকে বিষয়টি জানান। এসপির নির্দেশে তাৎক্ষণিক আইনগত ব্যবস্থা নেয় পুলিশ।

শেরপুর হাইওয়ে থানার ওসি নবীর হোসেন বলেন, “খবর পেয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তফিজুর রহমান ঘটনাস্থলে আসেন। তিনি বিস্তারিত ঘটনা শোনেন এবং ঘটনার সত্যতা পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে যুবককে কারাদণ্ড এবং জরিমানা করেন।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *