নারীর মরদেহ বাংলাদেশ সীমান্তে ফেলে গেছে বিএসএফ

মেহেরপুর সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী বাজিতপুর গ্রামের একটি মাঠ এলাকায় পড়ে আছে মানসিক ভারসাম্যহীন অজ্ঞাত এক নারীর মরদেহ।সোমবার (১৫ নভেম্বর) সকালের দিকে সরেজমিনে ভারতের নদিয়া জেলা তেহট্ট থানার ৮২ বিএসএফের বেস্টগঞ্জ কোম্পানির সদর থেকে মাত্র ১০ গজ দূরে ওই নারীর মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা গেছে।বাজিতপুর গ্রামের কৃষক হামিদুল ইসলাম ও রমজান আলীসহ একাধিক ব্যক্তি জানান,

গত ২-৩ দিন ধরে ওই নারীকে সীমান্ত এলাকায় ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে। তার বয়স আনুমানিক ৫০ বছর। সম্ভবত রোববার তার মৃত্যু হয়েছে। পরে ভারতীয় বিএসএফ সদস্যরা তড়িঘড়ি করে ওই মরদেহ বাংলাদেশের সীমানায় ফেলে যায়।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা গেছে- বিজিবি সদস্যরা বিষয়টি বিএসএফকে অবহিত করেছেন। এ বিষয়ে উভয় দেশের মধ্যে পতাকা বৈঠকের প্রস্তুতি চলছে বলে জানানো হয়েছে বিজিবির পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুন=এবার আইসিসির প্রধান নির্বাহী কমিটির (সিইসি) সভা শেষ করে দেশে ফিরছেন বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী। সিইসি সভাতে ২০২৪ থেকে ২০৩১ সালের বিশ্ব ইভেন্ট বণ্টন নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। এই আট বছর স্লটে আটটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট রেখেছে আইসিসি। আট ইভেন্টের দুটির আয়োজক হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। ২০২৫ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আর ২০২৮ সালের টি২০ বিশ্বকাপ পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। আইসিসি সদস্যদের সভা শেষে আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইভেন্টগুলোর স্বাগতিক দেশের নাম ঘোষণা করা হবে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সুসংবাদ নিয়েই দেশে ফিরবেন।

এবার বৈশ্বিক ইভেন্টগুলো বণ্টন করা হচ্ছে মনোনয়নের ভিত্তিতে। তিন ধাপে আয়োজক দেশের ভাগ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রথম ধাপে ইভেন্ট আয়োজনে আগ্রহ দেখাতে প্রস্তাবনা চাওয়া হয়েছিল। ১৭টি দেশ আগ্রহ দেখিয়েছিল ছেলেদের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট পেতে। প্রাথমিক প্রস্তাবনা পাওয়ার পর বিস্তারিত প্রস্তাবনা চাওয়া হয়। বিসিবি শক্তিশালী একটি প্রস্তাবনা তৈরি করে জমা দেয়। ইভেন্ট পর্যালোচনা সভায় যেটা খুব প্রশংসিত হয়েছে বলে জানান একজন কর্মকর্তা।

আইসিসি প্রতিনিধি দল শিগগিরই সুযোগ-সুবিধা পর্যালোচনা করতে বাংলাদেশ আসতে পারে। ২০২৪ সালে টি২০ বিশ্বকাপ দিয়ে পরবর্তী আট বছরের স্লট কার্যকর হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্র যৌথভাবে আয়োজন করবে ‘২৪ সালের টি২০ বিশ্বকাপ। ২০২৫ ও ২০২৯ সালে হবে দুটি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। বিসিবি এককভাবে এই দুই টুর্নামেন্টে স্বাগতিক হওয়ার আবেদন করে। সেক্ষেত্রে ২০২৫ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি হতে পারে ঢাকায়। ২০২৭ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আর ২০২৮ সালে টি২০ বিশ্বকাপ রাখা হয়েছে। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা এবং পাকিস্তান মিলে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজনের প্রস্তাব দিলেও সেটা পাচ্ছে না।

তবে শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে একটি টি২০ বিশ্বকাপ পাওয়া নিশ্চিত। সেটি ২০২৮ সালের টি২০ বিশ্বকাপ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কোনো কারণে বোর্ড সভায় সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হলে ২০৩০ সালে স্বাগতিক করা হবে বাংলাদেশকে। ২০২৭ ও ২০৩১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ দেওয়া হতে পারে দক্ষিণ আফ্রিকা-জিম্বাবুয়ে আর ভারত, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডে মধ্যে যে কোনো দেশকে। পাকিস্তানও পেতে পারে একক টুর্নামেন্ট আয়োজনের সুযোগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *