স্বামীর দায়ের কোপে আঙুল হারানো সুমাইয়া পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি

স্বামীর দায়ের কোপে ডানের হাতের আঙুল হারানো টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে সেই সুমাইয়া আক্তার চলমান এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। গত রবিবার তার প্রথম পরীক্ষা থাকলেও তাকে থাকতে হয়েছে হাসপাতালের বেডে। সুমাইয়া বর্তমানে উপজেলার কুমুদিনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। উপজেলার সুমাইয়া গোড়াই সোহাগপাড়া এলাকার খাইরুল ইসলামের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কয়েকে মাস আগে উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের আমরাতৈল গ্রামের বিল্লাল হোসেনের দক্ষিণ আফ্রিকাফেরত ছেলে সাইফুল ইসলামের সঙ্গে সুমাইয়ার বিয়ে হয়। সুমাইয়া বাবার বাড়িতে থাকায় গত এক সপ্তাহ আগে সাইফুল শ্বশুরবাড়িতে আসে।

শুক্রবার ভোরে সুমাইয়াকে দা দিয়ে কোপাতে থাকে সাইফুল। নিজেকে বাঁচাতে গিয়ে সুমাইয়ার ডান হাতের একটি আঙুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তার চিৎকার শুনে মা নাসিমা বেগম ও বোন শিমু আক্তার এগিয়ে গেলে সাইফুল তাদেরও দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পুলিশ ও পার্শ্ববর্তী লোকজন তাদের উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করান।

সুমাইয়া উপজেলার গোড়াই উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আঙুল বিচ্ছিন্ন হওয়ায় তার পক্ষে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া সম্ভব হয়নি বলে গোড়াই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান জানান। এসএসসি পরীক্ষার্থী ও হাসপাতালে

চিকিৎসাধীন সুমাইয়া জানান, কষ্ট করে এত বছর লেখাপড়া করলাম। আমার বন্ধুরা সবাই পরীক্ষায় অংশ নিলেও আমি আঙুল হারিয়ে হাসপাতালে ভর্তি। এ জন্য খুব কষ্ট হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *