নাতনিকে ধর্ষণের অভিযোগে দাদা গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ১৪ বছর বয়সী নাতনিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে আপন দাদার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দাদা কাজেম আলী হাওলাদারকে (৭২) গ্রেফতার করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত কাজেম আলী হাওলাদার পটুয়াখালী জেলার তালতলা থানার জাকিতা ভোগের মৃত আপেজ হাওলাদারের পুত্র ও ফতুল্লা

থানার পাগলা রসুলপুর পশ্চিম পাড়ার নজরুলের ভাড়াটিয়া। রবিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে তাকে ফতুল্লা থানার পাগলা রসুলপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। থানা পুলিশ জানায়, নির্যাতিত কিশোরীর মা দুই বছর পূর্বে মারা যায়। পরে কিশোরীর বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে অন্যস্থানে বসবাস শুরু করে। তখন থেকে কিশোরীটি তার দাদা-দাদির সাথে

বর্তমান ঠিকানার বাসায় বসবাস করে আসছিলো। চলতি বছরের আগস্ট মাসের ১৭ তারিখ রাতে কিশোরীকে প্রথমবারের মতো ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে সে একাধিকবার কিশোরীটিকে ধর্ষণ করে। ফতুল্লা মডেল থানার ইনচার্জ রকিবুজ্জামান জানান, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা রুজু হয়েছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য কিশোরীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন=সাতক্ষীরা সদর উপজেলার লাবসা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) টানা সাতবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আবদুল আলীম। দেশে দ্বিতীয় ধাপে ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে জয়ী হয়ে তিনি টানা সাতবার চেয়ারম্যান হওয়ার রেকর্ড করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল আলীম সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির সদস্যসচিব। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে তিনি আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৬ হাজার ৩১৯ ভোট। তাঁর কাছের প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩ হাজার ২৯৭ ভোট। সাতক্ষীরার সদর উপজেলায় ১৩টি ইউপিতে বিজয়ী চেয়ারম্যানদের মধ্যে আবদুল আলীম সবচেয়ে বেশি ভোটে বিজয়ী হয়েছেন।

আবদুল আলীম বলেন, ১৯৮৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর প্রথমবারের মতো লাবসা ইউপি থেকে সাধারণ মানুষের ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। সেই থেকে টানা সাতবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন। এবারের নির্বাচনে বিএনপির দলীয় প্রতীক ছিল না। তবে ক্ষমতাসীন দলের নৌকা প্রতীকের সঙ্গে ভোটযুদ্ধে জনসাধারণ যে ভালোবাসায় তাঁকে সিক্ত করেছেন, তা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *