তালিকাভুক্ত রাজাকারের মেয়ে এবার নৌকার মাঝি!

দ্বিতীয় ধাপে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান (নৌকা) প্রতিকের মনোনয়ন পেয়েছে এলাকার চিহ্নিত রাজাকার ও পিচ কমিটির সদস্যের মেয়ে এমনটাই অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধাদের দেওয়া রাজাকারদের তালিকায় রয়েছে ঐ প্রার্থীর পিতার নামও।সোমবার আওয়ামী লীগ মনোনীত ঐ প্রার্থীর প্রার্থীতা বাতিল চেয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দরা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি বরাবর আবেদন করেছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ৯নং পোড়াদহ ইউনিয়নে। সেখানে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী চুড়ান্ত হয়েছে শারমিন আক্তার নাসরিন। তার পিতা আব্দুল গফুর মন্ডল একজন রাজাকার ও পিচ কমিটির সদস্য এমনটি অভিযোগ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের।

পোড়াদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম সবেদের লিখিত আবেদন সূত্রে জানা যায়, শারমিন আক্তারের পিতা আব্দুল গফুর মন্ডল একজন এলাকার চিহ্নিত স্বাধীনতা বিরোধী। স্বাধীনতার পর তিনি কলাবরেটর এ্যাক্টে জেল খেটেছেন। ২০১৬ সালের নির্বাচনে শারমিন আক্তার নাসরিন দলীয় (নৌকা) প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট

করেছেন। আব্দুল গফুর মন্ডলের নাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের দেওয়া তালিকাতেও রয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধী, রাজাকার ও পিচ কমিটির সদস্যরা নৌকার প্রার্থী হওয়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

মিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার নজরুল করিম জানান, মিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাদের তৈরি করা তৎকালিন রাজাকারদের যে তালিকা রয়েছে তাতে ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ৬নং ক্রমিকের নাম আব্দুল গফুর মন্ডল। আব্দুল গফুর মন্ডলের মেয়ে শারমিন আক্তার নাসরিন নৌকার মনোনয়ন পাওয়ায় হতাশ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাবেক এই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *