মাকে প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলায় মেয়েকে হত্যা

চাঁদপুরে আলোচিত নওরোজ আফরিন প্রিয়া হত্যা মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন তার মা তাহমিনা সুলতানা রুমি। এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত তার মায়ের পরকীয়া প্রেমিক আব্দুল হান্নানসহ আরও ২ জন।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় চাঁদপুর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ তথ্য জানান নিহতের মা তাহমিনা সুলতানা রুমি। এর আগে মেয়ের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মা নিজেই বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকালে সন্দেহভাজন হিসেবে মায়ের পরকীয়া প্রেমিক আব্দুল হান্নানকে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্র জানায়, মা সুলতানার কথিত প্রেমিক হান্নানের বাড়ি তাদের বাড়ির পাশেই। প্রিয়ার বাবা ইসমাইল হোসেন দীর্ঘদিন বিদেশে থাকার সুবাদে ৬ বছর আগে প্রিয়ার মায়ের সঙ্গে হান্নানের পরকীয়ার সম্পর্ক হয়। পরিবার ও এলাকার মানুষ বিষয়টি জানতে পারলে এ বিষয়ে একটি মামলাও করা হয়। পরে স্থানীয়ভাবে বেশ কয়েকটি সালিশের মাধ্যমে বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়। এর কয়েকদিনের মধ্যে প্রেমিক হান্নান বিদেশে পাড়ি জমান। এক মাস আগে তিনি আবার দেশে ফিরে আসেন।

নিহত প্রিয়া তার মা ও পরকীয়া প্রেমিক আব্দুল হান্নানকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন। পরে তিনি বিষয়টি তার বাবাকে জানিয়ে দেন। এ নিয়ে প্রিয়ার সঙ্গে তাহমিনা সুলতানা রুমি ও তার পরকীয়া প্রেমিক হান্নানের কলহ সৃষ্টি হয়। পরে তারা প্রিয়াকে হত্যা করেন।

গত বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টায় শাহরাস্তির নিজ শয়নকক্ষ থেকে নওরোজ আফরিন প্রিয়ার ক্ষত-বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি কুমিল্লায় তার শ্বশুরবাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আসাদুল ইসলাম জানান, ঘটনায় জড়িত মামলার বাদী প্রিয়ার মা তাহমিনা সুলতানা রুমি ও তার প্রেমিক আ. হান্নানকে কোর্টের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শাহরাস্তি মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল মান্নান জানান, তাহমিনা সুলতানা রুমি ও তার প্রেমিক আ. হান্নান মিলে প্রিয়াকে খুন করেছে। মেয়ে মায়ের পরকীয়া জেনে ফেলায় ২ জনে পরিকল্পনা করে প্রিয়াকে তাদের পথ থেকে সরিয়ে দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *