আসামে মুসলিমদের উচ্ছেদ করে শিবমন্দির নির্মাণ, প্রতিবাদ করায় পুলিশের ‘গুলিতে’ ‘নিহত’ ২

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামে একটা সুবিশাল শি’বমন্দির নির্মাণের জন্য হাজার হা’জার বাঙালি মুসলিমকে তাদের ভিটেমাটি থেকে উ’চ্ছেদ করা হয়েছে। ভিটেমাটি ফিরে পেতে আশ্র’য়চ্যুতরা বি’ক্ষোভ করলে পুলিশ গু’লি চালায়। এতে অ’ন্তত দুজন নি’হত এবং

আরও বেশ কয়েকজন আ’হত হয়েছে। ‘বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) আসামের দরং জেলায় এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, দরং জেলার ধলপুর গ্রামে হিলস ও সিপাহঝাড় এলাকায় প্রায় ৭৭ হাজার বিঘা জমি দ’খল করে বিশাল একটি শি:বমন্দির কম’প্লেক্স বানানোর জন্য

গত কয়েক মাস ধরেই আসাম সরকার সেখানে দফায় দফায় উচ্ছে’দ অ’ভিযান চালাচ্ছে। সেই ভিটেমাটি-হারা’নোরা বলছেন, তা:দের সব ধরনের সরকারি নথি ও পরিচয়পত্রই আছে। সবশেষ গত সো’মবার ওই অঞ্চলের প্রায় ৮০০ প’রিবা’রের বেশ কয়েক হাজার মানুষকে

তাদের ভিটেমাটি থেকে উ’চ্ছেদ করে সেই জমি খালি করা হয়। তার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দরংয়ে উ’চ্ছেদ-বি’রোধী কমিটির জমায়েতে পুলিশ গুলি চালায়। এতে বিপুল সংখ্যাক মানুষ হতাহত হয়েছে। স্থানীয় সাংবাদিক

দেবব্রত দত্ত বলেন, উ’চ্ছেদের বিরু’দ্ধে যে সেল গড়ে তোলা হয়েছে তাদের ডাকে ধলপুর ১, ২ ও ৩ নম্বর গ্রামের বেশ কয়েক হাজার মানুষ বৃহস্পতিবার জড়ো হয়েছিলেন – সেখানে পুলিশের হামলায় অন্তত

জনাদশেক ব্যক্তি গু’লি’বিদ্ধ হয়েছে বলে আমরা জানতে পারছি। তাদের মধ্যে অন্তত দুজন নি’হ’ত হয়েছে, একজনের লা’শের ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতেও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি আরও বলেন, উচ্ছেদ হওয়া

মানুষরা প্রায় সবাই বাঙালি মুসলিম যারা বহু দশক ধরে ধলপুরের চরা’ঞ্চলেই বসবাস করছেন। রহিমা শেখ নামে এক নারী বলেন, নদীর ‘বুকেই বারবার ঘর বাঁধি আর সেই নদীর বুক থেকেই বারবার আমাদের খ্যাদায়ে দেয়। অথচ আ:মাদের কাগজপাতি সব আছে- এনআরসি,

প্যান কা’র্ড। নিজেরা খাই বা না-খাই সরকারি খাজনা ঠিকই দিয়ে যাচ্ছি। সেই তিরাশি সালেরও কত আগে থেকে আমরা এখানে থাকতেসি। তহন এইহানে মন্দির-টন্দির কিসুই আসিল না, ছোট্ট একটা পাহাড় আসিল শুধু!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *