জাতিসংঘের বৈঠকে অংশ নিতে চায় ‘তালেবান’

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশন শুরু হয়েছে। সেখানে অংশ নিয়েছেন বিশ্বের প্রায় সকল দেশের সরকার বা রাষ্ট্রপ্রধান অথবা প্রতিনিধি। তবে এখন এই অধিবেশনে

অংশ নিয়ে বিশ্ব নে’তাদের সামনে বক্তব্য দিতে চায় আফগানিস্তানের ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী তালেবান। চলতি সপ্তাহেই সেখানে অংশ নেওয়ার আগ্রহ জানিয়েছে তারা। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য

জানিয়েছে বা’র্তাসংস্থা রয়টার্স ও ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। সোমবার আফগানিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি জাতিসংঘে পাঠানো এক চিঠিতে এই আগ্রহ প্রকাশ করেন। জা’তিসংঘের একটি কমিটি এখন এই ব্যাপারে সি’দ্ধান্ত নেবে। বিবিসি জানিয়েছে, তালেবান

ইতোমধ্যেই জাতিসংঘে তাদের দূতও নিয়োগ করেছে। কাতারের রাজধানী দোহায় অবস্থিত তালেবানের রাজনৈতিক কার্যালয়ের মু’খপাত্র সোহাইল শাহীনকে

জাতিসংঘে আফগান দূত হিসেবে নি’য়োগ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু জাতিসংঘের নিয়ম হলো, কমিটি যতদিন সিদ্ধান্ত না নিচ্ছে, ততদিন পুরনো দূতই বহাল থাকবেন। তাই আশরাফ গনির আমলে নিযুক্ত আফ’গানিস্তানের দূতই

আগামী সোমবার কথা ব’লবেন। যদিও তালেবান জানিয়ে দিয়েছে, আশরাফ গনির আমলে নিযুক্ত দূত আর আফগানিস্তানের প্রতিনিধি নন। জা’তিসংঘের একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, তালেবানের

এই আবেদন এখন জা’তিসংঘের একটি কমিটি খতিয়ে দেখবে। ৯ সদস্য বিশিষ্ট ওই কমিটিতে যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও রাশিয়াও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। আগামী সোমবার জাসিংঘের সাধারণ পরিষদের অধি’বেশন সমাপ্ত হওয়ার কথা রয়েছে

এবং এর আগে ওই কমিটির বৈঠকে বসার কোনো সম্ভাবনা নেই। আর তাই, জাতিসংঘের বিধি অনুযায়ী- ওই কমিটি বৈঠকে কোনো সি’দ্ধান্ত নেওয়ার আগপর্যন্ত বৈশ্বিক এই সংস্থাটিতে গোলাম আই’জ্যাকজাই-ই আফগানিস্তানের প্রতিনিধি হি’সেবে অবস্থান করবেন।

অন্যদিকে কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি সাধারণ পরিষদের বৈঠকে বলেছেন, বিশ্বের অন্য দেশগুলি যেন তা’লেবানের সঙ্গে আলোচনা

করে। তার মতে, ”বয়কট করে কোনো লাভ হবে না। তাতে মেরুকরণ হবে। তার প্রতিক্রিয়া হবে। কিন্তু কোনো ইতিবাচক ফল হবে না।” সূত্র : বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *