কন,স্টেবলের চাকরি হারিয়ে এখন ডাকাত দলের সর্দার

যশোরের বাঘারপাড়া থানায় কর্মরত অবস্থায় ছয় বছর আগে ডাকাতি করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েন পুলিশ কনস্টেবল মিজানুর রহমান। এ ঘটনায় পুলিশের চাকরি হারান তিনি। ছয় বছর পর বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) সেই একই এলাকায় ডাকাতি করতে গিয়ে দলের তিন সদস্যসহ আটক হয়েছেন। এবার তার দলে পাওয়া গেছে কামরুজ্জামান (৩৫) নামের এক ইউপি সদস্যকে।কামরুজ্জামান যশোরের শার্শা উপজেলার গোগা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য। যশোর ডিবি পুলিশের ওসি রুপন কুমার সরকার জানান, ২০১৫ সালে বাঘারপাড়া থানায় কর্মরত অবস্থায় কনস্টেবল মিজানুর রহমান ডাকাতি করতে গিয়ে ধরা পড়েন।

ওই ঘটনায় তিনি চাকরিচ্যুত হন। এরপর তিনি আন্তঃজেলা ডাকাত দল গঠন করেছেন। তার দলে শার্শার গোগা ইউপি সদস্যকামরুজ্জামানও রয়েছে। এ চক্রটি আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে ডাকাতি করত। আটককৃতরা হলেন, নড়াইলের নড়াগাতি থানার নয়নপুর গ্রামের মুক্তার হোসেনের ছেলে ও পুলিশের চাকরিচ্যুত কনস্টেবল মিজানুর রহমান (৪০), শার্শা উপজেলার গোগা ইউপির ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য ও সেতাই গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে কামরুজ্জামান (৩৫), সাতক্ষীরা সদরের মাছখোলা গ্রামের জামাত আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৩০) ও শার্শা উপজেলার সেতাই গ্রামের নাজির উদ্দিন শেখের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (৫২)।

ওসি রুপন কুমার সরকার জানান, বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে যশোরের বাঘারপাড়ার সুকদেবনগর এলাকায় পাঁকা রাস্তার উপর থেকে স্থানীয়রা একটি মাইক্রোবাসসহ চার ডাকাতকে আটক করে। খবর পেয়ে বাঘারপাড়া থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতার করেন। এ সময় ডাকাতি করা মাইক্রোবাস ও গাড়িতে থাকা দেড় লাখ টাকার বিভিন্ন মালামাল জব্দ করা হয়। তিনি আরও জানান, চালক ইকবাল হোসেন ও আশরাফুজ্জামান মাইক্রোবাসযোগে ঢাকা থেকে ১২ আগস্ট ভোরে সাতক্ষীরার উদ্দেশ্যে রওনা হন।তারা রূপসা ফেরিঘাট দিয়ে খুলনার ডুমুরিয়া থানাধীন গুটুদিয়া নামক স্থানে পৌঁছালে একটি মাইক্রোবাস ও একটি প্রাইভেটকার বেরিকেট দিয়ে তাদের গতিরোধ করে।

এক পর্যায়ে ধারালো অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের চোখ ও হাত-পা বেঁধে ফেলে। এরপর সকাল পৌনে ৯টার দিকে বাঘারপাড়া থানাধীন সাইটখালী এলাকায় রাস্তার পাশে ফেলে দেয়। স্থানীয় জনগণ তাদেরকে উদ্ধার করলে ঘটনা জানতে পারে। এরপর এলাকাবাসী বাঘারপাড়া থানায় বিষয়টি অবহিত করে। এলাকাবাসীর চেষ্টায় একপর্যায়ে সকাল ১০টার দিকে সুকদেব নগর এলাকায় থেকে চার ডাকাতকে লুণ্ঠিত মাইক্রোবাসসহ হাতেনাতে আটক করে। এ ঘটনায় চারক ইকবাল হোসেন বাঘারপাড়া থানায় মামলা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *