নাসরুল্লাহ: ইসরায়েলের ‘হামলার’ উপযুক্ত ‘প্রতিশোধ নেয়া হবে

লেবাননের হিজবুল্লাহ আ’ন্দোলনের প্রধান হাসান নাসরুল্লাহ হুঁশিয়ারি উচ্চা’রণ করে বলেছেন, লেবাননে ইসরায়েলের কার প্রত্যেকটি বিমান হামলার উপযুক্ত ও আনুপাতিক হারে প্র’তিশোধ নেয়া হবে। বিগত ১৫ বছরের মধ্যে গত বৃহস্পতিবার লে’বাননের মা’টিতে বিমান হা’মলা

চালায় ইসরায়েল। পরের দিনই ইসরায়েলে রকেট হামলা চালিয়ে জবাব দেয় হি’জবুল্লাহ। হাসান নাসরুল্লাহ, ফাইল ছবি শনিবার (৭ আগস্ট) এক টিভি ভা’ষণে নাসরুল্লাহ বলেন, আমাদের হামলাটি ইস’রায়েলের হা’মলারই জবাব

। দক্ষিণ লেবাননে ২০০৬ সালে ইসরায়েলের সাথে যু’দ্ধ শেষ হওয়ার বার্ষিকী উপলক্ষে ভাষণ প্রদানকালে এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় তিনি আরো বলেন, আমরা আমাদের শ’ত্রুকে জানিয়ে দিতে চাই, লেবাননে

ইসরায়েলের যে কোনো হা’মলার একটি প্রতিক্রিয়া অবশ্যই থাকবে, উপযুক্ত ও আনুপাতিক হারে। কারণ আমরা আমাদের দেশকে ‘রক্ষা করতে চাই। লেবাননে হামলা চালাচ্ছে ই’সরায়েল, ফাইল ছবি না’সরুল্লাহ ইসরায়েলের সাম্প্রতিক বিমান হামলাকে ‘অত্যন্ত বি’পজ্জনক’ বলে

উল্লেখ করে বলেন, আমরা যু’দ্ধ চাই না। আমরা যু’দ্ধের দিকে যেতে চাই না। কিন্তু প্র’য়োজন হলে আমরা সব সময় এর জন্য প্রস্তুত। এর আগে লেবাননে ইসরায়েলের সর্বশেষ হামলাটি হয়েছিল ২০১৪ সালে। সিরিয়ার

সী’মানার কাছে সে হা’ম’লাটি করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবারের ওই হা’মলার জবাবে শুক্রবার সকালে ইসরায়েলি অবস্থানে হিজবুল্লাহর রকেট ‘ব’র্ষণ করে। এর পরপরই ইস’রায়েল জানায়, তারা ‘পুরোপুরি যু”দ্ধের দিকে যেতে চায় না’।

যু’ক্তরাষ্ট্রও সে সময় হিজবুল্লাহকে ইসরায়েলে রকেট হামলা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানায়। ২০০৬ সালের গ্রীষ্মে ৩৩ দিনব্যাপী ই’সরায়েল-লেবানন যু’দ্ধে লেবাননে নিহতের সংখ্যা ছিলো ১ হাজার ২০০ জন, যাদের অ’ধিকাংশই

ছিলেন বেসামরিক নাগরিক। অ’ন্যদিকে ইসরায়েলের ১৬০ জন নিহত হয়, যাদের অধিকাংশই ছিল সে’নাসদস্য। ওই বছরের ১৪ আগস্ট জাতিসংঘের ‘মধ্যস্থতায় দুই দেশের মধ্যে যু’দ্ধবিরতি ঘটে। হিজবুল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে মার্কিন

নিষেধাজ্ঞার লক্ষ্যব’স্তু ছিল। পাশাপাশি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবেও কালো তা’লিকাভুক্ত ছিল। কিন্তু তা সত্ত্বেও দলটি লে’বাননে একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে আ:বির্ভূত হয়েছে। এমনকি দেশটির পার্লামেন্টেও তাদের উল্লেখযোগ্য অংশীদারিত্ব রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *