মুখের মধ্যে বোতল ঢুকিয়ে দেন নাসির, এরপরই অসুস্থ হয়ে পড়েন নায়িকা পরীমনি

ফেসবুক স্ট্যাস্টাসে ধর্ষণ ও হত‌্যাচেষ্টার অভিযোগ আনার পর রোববার রাতে সাংবাদিকদের কাছে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন সময়ের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি।

রাজধানীতে নিজ বাসায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পরীমনি সাংবাদিকদের জানান, গত বুধবার (৯ জুন) রাতে

পরিচিত জেমির সঙ্গে উত্তরার বোট ক্লাবে যান। সেখানে নাসির উদ্দিনসহ চার-পাঁচজনকে টেবিলে বসে থাকতে দেখেন

তিনি। তাদের সঙ্গে পরীমনির পরিচয় করিয়ে দেন অমি। টেবিলে দুটি মদের বোতল ছিল। পরীকে মদপানের

প্রস্তাব দিলে তিনি তা নাকচ করেন। পরে তাকে কফি খেতে দেয়া হয়। কিন্তু সেই কফির স্বাদ ছিল অস্বাভাবিক। তাই

তিনি কফি পান করেননি। এমনকি পরে দেয়া কোল্ড ড্রিংকসেও কিছু মেশানো হয়েছিল বলে মনে হয় তার। তিনি কোল্ড ড্রিংকসও পান করেননি। এতে ক্ষিপ্ত হন নাসির।

তিনি আরো জানান, তখন পরীমনি ও তার সঙ্গে থাকা জেমি ওয়াশরুমে যেতে চাইলে পরীকে যেতে বাধা দেয়া হয়।

এমনকি পরীমনি ও জেমি বাসায় যেতে চাইলেও বাধা দেয়া হয়। নাসিরুদ্দিন পরীমনিকে লাথি মেরে চেয়ার থেকে ফেলে

দেন এবং মুখের মধ‌্যে মদের বোতল ঢুকিয়ে দেন। এতে তার দাঁতের মধ‌্যে আঘাত লাগে ও কিছু মদ গলার মধ‌্যে

চলে যায়। এতে তার বুক জ্বালা করে। তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরীমনি ও জেমি চিৎকার এবং কান্না করলে তাদের ধর্ষণ করার চেষ্টাসহ হুমকি এবং গালাগালি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *