বাঘ আর গ’রুর এক স’ঙ্গে পানি খাওয়ার ভিডিও ভাইরাল

বাঘ’ আর এক ‘গরু’ এক স’ঙ্গে একই জায়গায় পানি খাচ্ছে!! নিজ চোখে না দেখলে এ দৃশ্য বি’শ্বাস হবার মতই না। সা”মাজিক যোগা’যোগ মাধ্যম টু’ইটারে স’ঞ্জ’য় ব্রাগতা নামে এক সাংবা’দিক একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। সেখানে দেখা গেছে

এই বিরল ঘটনা। ভিডি’ওটিতে দেখা যায়, একটি চিতাবাঘ ও নীল”গাই কৃ’ত্রিম একটি জ’লাশয় থেকে একই স’ঙ্গে পা”নি খাচ্ছে। তাদের মধ্যে কয়েক ফুটের দূর”ত্ব ছিল মাত্র।চিতাবাঘটি চা’ইলেই নীল’গাইটিকে শিকার করতে পারতো।

অথচ চিতা’বাঘটির কাছে দাঁ’ড়িয়েই নীল’গাইটিকে পানি খেতে দেখা যাচ্ছে।ভিডি’ওটির পোস্ট করে সঞ্জয় ক্যাপশনে লিখেছেন, এটি রাজ’স্থানের জ’য়পুরের ঝালানা লিও’পার্ড সা’ফারি পা’র্কের দৃশ্য। নী’লগাই চিতাবাঘের কাছে বেশ ভালো শি’কার। তবে এমন ঘটনা এ সাফারি পার্কে আগেও ঘটেছে। একটি নীলগাইয়ের

পক্ষে প্রথম’বারেই এ’তক্ষণ চিতাবা’ঘের সঙ্গে পানি খাওয়ার সাহ’স সঞ্চ’য় করা স’ম্ভব নয়। ধীরে ধীরে হয়তো সে তা সঞ্চয় করেছে।

আরও পড়ুনঃকরোনা’ভাইরাসের সং’ক্রমণের দাপটে ধস নেমেছে ভারতের গা’ড়ির বাজারে। গত বছরের

জুনের তুলনায় এবার জু’নে দেশটিতে যাত্রী’বাহী বিভিন্ন যানবাহ’নের বি’ক্রি’ কমেছে অ’র্ধেক (৪৯.৫৯%)। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) ভারতের অটো’মোবাইল খাতের ব্যবসায়ীদের সংগঠন- সিয়াম (এসআইএএম) এ তথ্য জানিয়েছে।সিয়ামের দেয়া পরিসং’খ্যান তুলে ধরে এনডিটিভিসহ ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যম জানায়,

গাড়ি বিক্রির তথ্যে দেশটির অটো’মোবাইল খাতের দৈন্যদশা ফুটে উঠেছে। করোনা আত’ঙ্কে দুই মাসের বেশির সময় লকডা’উন কার্য’কর থাকায় বড় কোন ক্রয়া’দেশ পায়নি গাড়ি বিক্রেতা কোন প্রতি’ষ্ঠান।

যাও বা বিক্রি হয়েছে অপ’র্যাপ্ততার কারণে সে তালিকায় ছিল না বিএ’মডব্লিউ, মা’র্সিডিস, টাটা মটরস ও ভলভো অটো।গত মা’সের দেশটিতে মোট যাত্রীবাহী গাড়ি রপ্তানি কমেছে ৫৬.৩১ শতাংশ। এসময়ে, থ্রি-হুইলা’রের ৩৪.৯৮ শতাংশ আর টু-হুইলা’রের রপ্তানি

কমেছে ৩৪.২৫ শতাংশ।বন্দরে খালাস কার্যক্রম শেষ করতে অ’তিরিক্ত স”ময় লাগার কারণে ভারতের গাড়ি উৎপাদনে ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। এই’খাতটি বর্তমান দুর্গতি কাটিয়ে ওঠার পাশাপাশি আগামীতে যেন কোন প্রতিবন্ধ’কতার মুখে না পড়ে, এই দুই দিক সামলে

নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে জানি’য়েছেন সি’য়াম প্রেসি’ডেন্ট রাজন ওয়াধেরা। গত মাসে ভারতের বাজারে ১ লাখ ৫ হাজার ৬১৭টি যাত্রীবাহী গাড়ি বিক্রি হয়েছে। এক বছর আগে যেখানে বিক্রি হয়েছিল ২ লাখ ৯ হাজার ৫২২টি। কার বিক্রি হয়েছে ৫৫ হাজার ৪৯৭টি,

এক বছর আগে যে সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৩২ হাজার ৭৭টি। এক বছর আগে সেবাখাতে ব্যবহৃত যান’বাহনের বিক্রির পরিমাণ ৬৭ হা’জার ১১৬টি হলেও গত মাসে তা নেমে এসেছে ৪৬ হাজার ২০১টিতে। ভ্যান সিগমেন্টের গাড়ি বিক্রি হয়েছে ৩ হা’জার ৯১৯টি যা

গত’বছরের তুলনায় ৬২.০৬ শতাংশ কম। এক বছর আগে ১৬ লাখ ৪৯ হাজার ৪৭৫টি টু-হুই’লার বিক্রি হলেও গতমাসে হয়েছে ১০ লাখ ১৩ হাজা’র ৪৩১টি, শতাংশের হিসাবে যা ৩৮.৫৬ ভাগ কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *