আ.লীগ নেতাকে নারীর জুতাপেটার ভিডিও ভাইরাল!

বরগুনায় নারীদের জুতা পরেছেন আওয়ামী লীগের এক নেতা। সম্প্রতি এমনই একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিষয়টি নিয়ে জেলায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, ভাইরাল হওয়া আওয়ামী লীগ নেতার নাম শাহ আলম। তিনি সদর উপজেলার নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

২ মিনিট ১২ সেকেন্ডের ভিডিওতে শাহ আলমকে একটি কক্ষে একজন মহিলা এবং কিছু লোকের সাথে দেখা যায়। কথাবার্তার একপর্যায়ে বোরকা পরা ওই নারী তাকে মারধর শুরু করেন। শনিবার রাতে বরগুনা পৌর শহরের ডিকেপি রোড এলাকার একটি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

জুতা নিক্ষেপের ঘটনাটি পূর্বপরিকল্পিত ও বানোয়াট বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগ নেতা শাহ আলম। তিনি বলেন, “আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা ইচ্ছাকৃতভাবে ভাড়াটেদের দিয়ে এটা করেছে।” তবে ওই নারীর সঙ্গে কয়েকদিন ফোনে কথা হলেও তাকে চিনি না। মহিলা ডেকে ডিকেপিকে রাস্তায় আসতে বলেন। আমি বাড়ির কাছে আসতেই কয়েকজন যুবক আমার কাছে এসে জিজ্ঞেস করল আমি কোন বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছি কিনা। তারপর আমি হ্যাঁ সূচক উত্তর. এরপর যুবকরা আমাকে ওই মহিলার বাড়িতে নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, আমি সেখানে গিয়ে দেখি আরেক নারী শিশুকে নিয়ে বসে আছে। কিছুক্ষণ পর একজন বোরকা পরা মহিলা এসে আমার পাশে বসল। সঙ্গে সঙ্গে ওই যুবকরা ঘরে ঢুকে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এমন অবস্থায় আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি। সারা শরীর ঘামছে। আমি আমার পাঞ্জাবি খুলে ফেলি। এই চোদনে এই যুবকরা আমার ছবি তুলেছে। মহিলাটি তার জুতা দিয়ে আমাকে মারতে শুরু করে। সেই ছবিও তুলেছিল তরুণীরা। আমার পকেটে ৬০ হাজার টাকা ছিল, যুবকরা তা নিয়ে যায়।

তিনি আরও বলেছিলেন যে তার ধারণা ছিল ডিকেপি রোডে আটকা পড়া মহিলার ভিডিও ধারণ করা এবং যুবকদের ব্ল্যাকমেল করা। যুবকরা আমার কাছে আরও টাকা চাইল। টাকা না দেওয়ায় ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.