বয়ফ্রেন্ড কে দেয়া অশ্লীল ছবি ভাইরাল হওয়ার ভয়ে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

নড়াইলের লোহাগড় উপজেলায় প্রেমিকের দেওয়া অশ্লীল ছবি পেয়ে গলায় স্কার্ফ পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক কলেজছাত্রী। গত শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে নির্মাণাধীন একটি ভবনের রডের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। তিনি উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নের মাঝগ্রাম মো. বাচ্চু শেখের মেয়ে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিহত ছাত্রী খুলনার বয়রা মহিলা কলেজে অধ্যয়নরত। সে ওই কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসি পাস করেছে। দীর্ঘদিন ধরে মল্লিকপুর ইউনিয়নের পাচুরিয়া গ্রামের থান্ডারপাড়ার শহিদুল থান্ডারের ছেলে তাসরিফ থান্ডারের (২১) সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিভিন্ন সময় তাসরিফ গোপনে ওই ছাত্রের মোবাইল ফোনে আপত্তিকর ছবি তুলে অনৈতিক মিলনের প্রস্তাব দেয়।

এতে ছাত্রী রাজি না হওয়ায় তাশরিফ তার কাছে থাকা আপত্তিকর ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। একপর্যায়ে তাশরিফ তার কাছে থাকা আপত্তিকর ছবি ছাত্রী ও তার বান্ধবী কুলসুমের মোবাইল ফোনে পাঠায়। একপর্যায়ে আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এলাকার মানুষের মধ্যে।

নিহতের ভাই দাউদ সাংবাদিকদের বলেন, “আমি পাঁচ-ছয় মাস আগে জানতে পেরেছিলাম যে, তাসরিফ নামের একটি ছেলের সঙ্গে আমার বোনের সম্পর্ক ছিল।” পরে বোনকে অনেক বুঝিয়েছি। কিন্তু তার বোনের প্রেমিক তাসরিফ নগ্ন ছবি পোস্ট করায় রাগ ও অভিমানে আত্মহত্যা করেছে। চরিত্রহীন লুম্পত তাসরিফের বিচার দাবি করছি। আর যাতে কোনো ভাই তার বোনকে হারাতে না পারে। অভিযুক্ত তাসরিফের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। এ প্রসঙ্গে তাসরিফের মা বলেন, যাই হোক, তুমি চলে যাও, আমরা দেখব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.