শ্বশুর বললেন স্ট্রোক, আঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশে খবর দিলেন এক চিকিৎসক

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে মেহেরুন্নেছা (২১) নামে এক প্রবাসীর স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তবে তার গলা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহত মেহেরুন্নেছা পশ্চিম গোমদন্ডী আপেল আহমদ টেক

এলাকার জাফর আহমদের মেয়ে। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। দুই বছর আগে পোপাদিয়া ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের প্রবাসী খায়রুল ইসলাম বাবুর সঙ্গে তার বিয়ে হয়।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক নাহিদা আকতার জানান, ওই গৃহবধূকে স্বজনরা হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। নিহতের শ্বশুর তোফায়েল আহমদ গৃহবধূ স্ট্রোক করেছেন বলে জানালেও

তার গলায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন থাকায় পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল করিম বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তে জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন=সরকারি নিষেধাজ্ঞায় গত ৪ অক্টোবর থেকে সারাদেশে চলছে ইলিশ নিধন বন্ধে অভিযান। উত্তরের জেলা পাবনাতেও পদ্মা ও যমুনা বিধৌত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করছে প্রশাসন।

মৎস অধিদপ্তর, থানা পুলিশ ও নৌ পুলিশের সদস্যরা প্রতিদিন-রাতে নদীগুলোতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ শিকারীদের ধরতে কাজ করছে। তার মাঝেও প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে ইলিশ ধরতে নদীতে নামছে জেলেরা।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, গত ৪ অক্টোবর থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত এই ৯ দিনে পাবনার সুজানগর উপজেলার যমুনা নদীর বিভিন্ন এলাকায় ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ৪৮টি অভিযান পরিচালনা করেছে মৎস অধিদপ্তর, থানা ও নৌ পুলিশ। এসব অভিযানের মধ্যে উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয় ১৩টি এবং নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে ৪টি।

সহকারি পুলিশ সুপার (সুজানগর সার্কেল) রবিউল ইসলাম বলেন, চারটি নিয়মিত মামলায় ৩৩ জনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আর ১৩টি ভ্রাম্যমান আদালতে ৬১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদের অর্থ ও কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। সেইসাথে এসব অভিযানে জব্দ করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ (কয়েক লক্ষ মিটার) জাল জব্দ করে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। জব্দকৃত ইলিশ মাছ এতিমখানায় দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *