ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা চান আঙ্গেলা মার্কেল, ইসরাইলের না

জার্মানির বিদায়ী চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ‘ম্যার্কেল বলেছেন, ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন সংকটের দ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধানের বিষয়ে বার্লিন প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রয়েছে। ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা নিয়ে ইসরা’য়েলের সঙ্গে মত’পার্থক্য চলার মধ্যেই এ কথা বলেন তিনি। খবর আল-জাজিরার।

জার্মানির চ্যান্সেলর হিসেবে বিদায় নেওয়ার আগে রোববার ইসরায়েল সফরে গিয়ে আঙ্গেলা ম্যার্কেল এ মন্তব্য করেন। ম্যা’র্কেল বলেন, ফিলিস্তিনের সঙ্গে ইসরায়েলের কয়েক দশক ধরে চলা দ্বন্দ্ব-সংঘাত

অবসানে দ্বিরাষ্ট্রীয় স’মাধানই সেরা উপায় বলে মনে করে জার্মানি। আঙ্গেলা ম্যার্কেল এ ‘মন্তব্য করলেও ফিলিস্তিনি ইস্যুতে ইসরায়েলের ঘোর আপত্তি রয়েছে। ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেটের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ

সম্মেলনে জার্মান চ্যা’ন্সেলর বলেন, এই বিষয়ে আমি মনে করি, বর্তমান পরিস্থিতিতে এ নিয়ে আশার তেমন কিছুই না দেখা গেলেও দ্বি’রাষ্ট্রীয় সমাধানের বিষয়টি আলোচনার টেবিল থেকে সরিয়ে ফেলা বা এটি

ধামাচাপা দেওয়া উচিত হবে না। তা ছাড়া একটা রাষ্ট্রছাড়া ফি’লিস্তিনিরা নিরাপদে বসবাস করতে পারবেন না। অধিকৃত ভূখণ্ডে ইস’রায়েলের ইহুদি বসতি স্থাপন কার্যক্রমও সং’কট স’মাধানে সহায়তা করেনি। ম্যার্কেলের এসব কথার জবাবে অ’বৈধ বসতি স্থাপনকারীদের

সাবেক নেতা বেনেট ফি’লিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করেন। তিনি দাবি করেন, ‘আমাদের অভিজ্ঞতা হলো ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার অর্থ হবে, খুব সম্ভবত একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা। নিজেকে একজন ‘

বাস্তববাদী মানুষ’ আ’খ্যায়িত করে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট বলেন, ফিলিস্তিনিদের জন্য রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার চেয়ে বরং পশ্চিম তীর ও গাজায় তাদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত তিনি। সূত্র : এএফপি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *