আওয়ামী সরকারকে বিদায় করতে হবে: ড. কামাল

জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে মাঠে নেমে বর্তমান আওয়ামী সরকারকে ক্ষমতা থেকে বিদায় করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন গণফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ড. কামাল হোসেন

তিনি বলেন, আমরা জ্বালাও-পোড়াও আন্দোলন করব না, আমরা গণতান্ত্রিকভাবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সরকার পতনের আন্দোলন করব। ধৈর্য অনেক ধরেছি, আর ধৈর্য ধরার সময় নেই।’রোববার (২৯ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণফোরামের ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলোচনায় ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘এ আওয়ামী ফ্যাসিস্ট সরকার গণতন্ত্রকে অকার্যকর করেছে, সংসদকে অকার্যকর করেছে। বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎকে নষ্ট করে দিয়েছে। এ সরকারের ক্ষমতায়

থাকার অধিকার নেই। দেশের মালিক জনগণ তাই অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার গঠন করতে হবে। তাই সময় নষ্ট না করে পাড়ায়-মহল্লায় গ্রামগঞ্জে গিয়ে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে এখনই মাঠে নামতে হবে।’

ড. কামাল হোসেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সম্পর্কে বলেন, ‘এই আইন নাগরিক সমাজ ও সাংবাদিকদের মুক্ত চিন্তা এবং মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে খর্ব করেছে। পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু আজ বাংলাদেশের সাধারণ বিষয়ে পরিণত হয়েছে।’

জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা অভিপ্রায় অনুযায়ী আইন প্রণয়নের লক্ষ্যে সংসদ সদস্যদের নিয়ে চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা নিশ্চিত করে সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ সংশোধন করার দাবি করেন ড. কামাল হোসেন।

তিনি বলেন, ‘নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন হওয়ার পর বাংলাদেশে আর কোনো নির্বাচন নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হয়নি। একাদশ নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে। এক কথায় বলতে গেলে এ সরকার জনগণের সরকার নয়। তাই বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক রাজনীতিকে সামগ্রিকভাবে পুনর্গঠনের লক্ষ্যে করণীয়সমূহ স্থির করতে হবে এবং বাস্তবায়নের অন্যতম কৌশল হিসেবে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *