পরী মণি, মুনিয়া ও ডা. সাবরীনার অডিও-ভিডিও সরাতে রিট

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া চিত্রনায়িকা পরী মণি ও পুলিশ কর্মকর্তা সাকলায়েনের ব্যক্তিগত মুহূর্তের ভিডিও সব প্ল্যাটফর্ম থেকে সরানোর নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। আজ বুধবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তাসমিয়া নুহাইয়া আহমেদ এ রিট দায়ের করেন।

রিট আবেদনে আইনজীবী বলেন, ‘ব্যক্তিগত জীবনের গোপনীয় বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে যেন প্রকাশিত না হয়, সে বিষয়ে নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।’এ ছাড়া চিত্রনায়িকা পরী মণি, কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়া, ডা. সাবরীনা আরিফ চৌধুরীর পূর্বের ব্যক্তিগত মুহূর্তের ভিডিও, অডিওসহ ব্যক্তিগত তথ্য সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে মুছে ফেলার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

রিটে তথ্যমন্ত্রণালয় ও বিটিআরসিকে বিবাদী করা হয়েছে।ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) পশ্চিম বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) মো. গোলাম সাকলায়েন শিথিল ও চিত্রনায়িকা পরী মণির একটি ভিডিও ফাঁস হয়। এক মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দুইজনকে জন্মদিনের কেক কেটে উদ্‌যাপন করতে দেখা গেছে।

এর আগে গোলাম সাকলায়েন ও পরী মণির আরেকটি ভিডিও ফাঁস হয়। ১ আগস্ট রাতের ওই ফুটেজে দেখা যায়, রাত ৮টার দিকে রাজারবাগের মধুমতি ভবনের সামনে থামে পরী মণির হ্যারিয়ার গাড়ি। ওই ভবনের দশম তলায় সাকলায়েনের সরকারি ফ্ল্যাট। সাকলায়েন নিজে নেমে এসে পরী মণিকে ফ্ল্যাটে নিয়ে যান। এর কিছুক্ষণ পর সাকলায়েনের বাসায় প্রবেশ করেন পরী মণির খালাতো বোন ও তাঁর স্বামী। পরে রাত ২টার দিকে পরী মণিসহ তিনজনই বের হয়ে যান বাসা থেকে।

জন্মদিনের কেক খাওয়ার ভিডিও ফাঁস হওয়ার পর সাকলায়েনকে ডিবি থেকে সরিয়ে ডিএমপির পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট (পিওএম) পশ্চিম বিভাগে বদলি করা হয়। এ ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে পুলিশ সদর দপ্তর। ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে গত ৪ আগস্ট রাজধানী বনানীর বাসা থেকে চিত্রনায়িকা পরী মণিকে বিপুল পরিমাণ মাদকসহ গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। পরদিন তাঁর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণে আইনে মামলা করা হয়। এরপর তাঁকে তিন দফায় রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

অন্যদিকে, রাজধানীর গুলশানে কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার লাশ উদ্ধার হয়। পরে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের ফোনালাপ ফাঁস হয়। এ ঘটনায় মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান তানিয়া বাদী হয়ে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগ এনে মামলা করেন। সম্প্রতি আদালত বসুন্ধরার এমডিকে ওই মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন।

এ ছাড়া সরকারের কাছ থেতে বিনামূল্যে নমুনা সংগ্রহের অনুমতি নিয়ে বুকিং বিডি ও হেলথকেয়ার নামের দুটি সাইটের মাধ্যমে টাকা নেওয়া এবং নমুনা পরীক্ষা ছাড়াই ভুয়া সনদ জালিয়াতি করার অভিযোগে গ্রেপ্তার জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ও জাতীয় হৃদেরাগ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক ডা. সাবরীনা চৌধুরীর ফোনের খুদেবার্তা দেশের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *