পিএমখালীতে ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসা ছাত্রী, লাখ টাকায় ধামাচাপার চেষ্টা

কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালীতে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৫ বছর বয়সী এক মাদ্রাসা ছাত্রী। ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে ধর্ষনের অভিযোগে অভিযুক্ত সিএনজি চালক শেখ আব্দুল্লাহ (২২)।

বৃহস্পতিবার রাতে পিএমখালীর ৬ ভাইয়ের পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার শিশুটি পিএমখালীর স্থানীয় একটি দাখিল মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী।

ছাত্রীর পরিবার ও এলাকাবাসি জানায়, বেশ কয়েক বছর আগে মাদ্রাসার ছাত্রীটি বাবা মারা গিয়েছে। তারপর তার মা অন্য একটি বিয়ে করে আলাদা থাকছেন। ছাত্রীটি তারা নানার বাড়িতে থাকছেন ।বৃহস্পতিবার রাতে খুরুশকুল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মৃত সৈয়দ হোসেনের ছেলে সিএনজি চালক শেখ আব্দুল্লাহ ভাড়া নিয়ে আসেন পিএমখালীতে। মেয়েটি রাতে প্রাকৃতিক কাজে বের হলে সিএনজি চালক তাকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। মেয়েটির চিৎকারে এলাকাবাসি এগিয়ে এসে ধর্ষক সিএনজি চালক আব্দুল্লাহকে আটক করে। পরে খুরুশকুল ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জাহিদ, জসিম, আব্দুল্লার এলাকার সরদার জমিরসহ কয়েকজন প্রভাবশালী এসে আব্দুল্লাহকে নিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায়য় সঠিক বিচার না পেয়ে মা-বাবাহীন মেয়েটি এখন আত্মহত্যার চেষ্টা করছে।

মেয়েটির প্রতিবেশী আনজু আরা জানান, আমরা ছেলের মা-বাবাকে বিষয়টি অবগত করি। কিন্তু তারা নানাভাবে গড়িমশি করে মেয়েটিকে না নিয়ে চলে যায়। পরে টাকা দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। এমবতাস্থায় মেয়েটি চরম অসহায় এবং দু:শ্চিন্তায় আছে।

বিষয়টি নিয়ে থানায় অভিযোগ করতে গেলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দে মামলা নিতে অপরাগতা প্রকাশ করে জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করার পরামর্শ দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *