কাশ্মীরে ভুয়া হামলা সাজানোর অভিযোগে আটক দুই বিজেপি কর্মী

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের কুপওয়াড়ায় ভুয়া হা’মলা ‘সাজানো’র অভিযোগে বিজেপির দুই ক’র্মীকে গ্রেফ’তার করা হয়েছে। একই সঙ্গে গ্রে’ফতার করা হয়েছে তাদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মকর্তাদেরও। কীভাবে ভুয়া হামলার

ছক সাজানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল তা সম্পর্কে বিস্তারিত শিগগিরই জানানো হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় এক সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা। খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

১৬ জুলাই ইসফাক অভিযোগ করেন, কুপওয়াড়ার গুলগামে ত্রাণ বণ্টনে গিয়ে স্বা’ধীনতাকামীদের হামলায় পড়তে হয়েছিল তাকে। এমনকী স্বাধীনতাকামীদের একটি গুলি তার পায়ে এসেও বেঁধে বলে দাবি করেন তিনি।

কিন্তু এই দাবি উড়িয়ে দিয়ে পুলিশ জানিয়েছে, সেদিন কোনও হামলাই হয়নি ওখানে। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছিল, ইসফাকের নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের বন্দুক থেকেই দু’র্ঘটনাবশত বেরিয়ে গিয়েছিল ‘গু’লি। এরপরই

স্বাধীনতাকামীদের হা’মলা স’ন্দেহে অন্য নিরাপত্তা কর্মকর্তারাও গু’লি চালান। কিন্তু পরে সামনে আসে আসল ঘটনা। জানা গেছে, ইস’ফাক, বশরত ও তাদের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সম্মিলিতভাবে ওই ভুয়া হামলা

সাজিয়েছেন। অভিযুক্তদের আদালতে তোলা হলে তাদের সাত দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। পুলিশ জানিয়েছে, নিজেদের নিরাপত্তা আরও জোরদার করতেই এই পরিকল্পনা করেছিলেন তারা।

প্রধান অভিযুক্ত ইসফাক আহমেদ মীর কুপওয়াড়ার আইটি সেলের প্রধান। অপরজন বশরত আহমেদ দলের জেলা মুখপাত্র। তারা নিজেদের মধ্যে শলাপরামর্শ করে ওই ভুয়া হা’ম’লার ঘটনা সাজান বলে অভিযোগ।

ইসফাকের বাবা মহম্মদ শাফি মীর কুপওয়ারায় বিজেপির জেলা সভাপতি। তার ছেলের নামে এমন অভিযোগ ওঠার পরই তাকে বহিষ্কার করেছে বিজেপি। যতদিন এই ঘটনার তদন্ত চলবে ততদিন তিনি ব’হিষ্কৃত থাকবেন বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *