জামিয়া রাহমানিয়া ছাড়লেন মামুনুল-মাহফুজুলের পরিবার

দীর্ঘ বছর অবস্থানের পর অবশেষে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঐতিহ্যবাহী জামাইয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া ত্যাগ করতে হলো প্রয়াত মাওলানা আজিজুল হকের পরিবারবর্গকে। মাদ্রাসাটি তার দুই ছেলে মাওলানা মামুনুল হক ও মাহফুজুল হকের পরিবারের নিয়ন্ত্রণে ছিল এই টানা ২০ বছর।

সোমবার (১৯ জুলাই) সকালে মাদ্রাসার বর্তমান মুহতামিম মাওলানা মাহফুজুল হক মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে বের হয়ে যান। চাবি কওমি শিক্ষা বোর্ড আল হাইআতুল উলিয়ার চেয়ারম্যান মাওলানা মাহমুদুল হাসানের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। পরে সেখানে উপস্থিত শিক্ষক ও ছাত্রদের নিয়ে ফেসবুক লাইভে আসেন তিনি। তখন বলেন, বিভিন্নভাবে কথা আসছে- আমাদের এ প্রতিষ্ঠান ছাড়তে হবে, এ ভবন আমাদের ছাড়তে হবে। আমাদের কাছে নিয়মতান্ত্রিকভাবে কোনো নোটিশ আসেনি। আমাদের দেশের শীর্ষ আলেমরা এ বিষয়টি নিয়ে কোনো পরামর্শও করছেন না।

তিনি আরও বলেন, চলমান অবস্থার অবসান হওয়া দরকার। ইতোমধ্যে আমাদের উপস্থিত শিক্ষক ও ছাত্ররা তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে আশপাশে চলে যাচ্ছেন। আমরা অল্প সময়ের মধ্যে মাদ্রাসার সব গেটে তালা দিয়ে শীর্ষ আলেমদের কাছে চাবি হস্তান্তর করবো। এ সময় মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকদের অধৈর্য না হওয়ারও আহ্বান জানান তিনি। এদিকে মাদ্রাসা ভবনটি সোমবারের মধ্যে না ছাড়লে ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে উচ্ছেদ অভিযান হওয়ার কথা ছিলো বলে জানা গেছে।

ওয়াকফ অ্যাস্টেট অনুমোদিত জামিআ রাহমানিয়া আরাবিয়া সাত মসজিদ মাদ্রাসা কমিটির এক সদস্য জানিয়েছেন, আজ ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে উচ্ছেদ অভিযান হওয়ার কথা ছিলো। তারা (মাওলানা মাহফুজুল হক) আগেই মাদ্রাসা ছেড়ে চলে গেছেন। তারা চাবি মাওলানা মাহমুদুল হাসানের কাছে হস্তান্তর করবেন। এখন আমরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করছি, আশা করছি মাদ্রাসার ভবনটি কমিটির কাছে হস্তান্তর করা হবে।

প্রসঙ্গত, মোহাম্মদপুরের জামি’আ রাহমানিয়া আরাবিয়া শীর্ষস্থানীয় একটি কওমি মাদ্রাসা। ১৯৮৮ সালে ওয়াকফ সম্পত্তিতে গড়ে ওঠা এই মাদ্রাসাটি ২০০১ সালে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় আল্লামা আজিজুল হকের পরিবার। তার ছেলে মাহফুজুল হক ও মামুনুল হকরা পরে হেফাজতের সঙ্গে সম্পৃক্ত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *