এএসপি পরিচয়ে প্রেম, বিয়ের পর জানা গেল বাদাম বিক্রেতা

বগুড়ায় পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পরিচয়ে কলেজ পড়ুয়া ছাত্রীকে বিয়ে করে প্রতারণার অভিযোগে

আব্দুল আলীম (৩২) নামে দুই সন্তানের জনককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত আব্দুল আলীম পঞ্চগড় জেলার

দেবীগঞ্জ উপজেলার ডাকিয়াপাড়া গ্রামের মৃত ফজলুল হকের ছেলে। তিনি পেশায় একজন বাদাম বিক্রেতা। গতকাল

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় প্রতারণার শিকার কলেজছাত্রীর বাড়ি থেকে আব্দুল আলীমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।জানা যায়,

আব্দুল আলীমের সাথে বগুড়া সদরের পলাশবাড়ি গ্রামের কলেজ পড়ুয়া এক মেয়ের মোবাইল ফোনে মিসকলের মাধ্যমে

পরিচয় হয়। এর এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আলীম নিজেকে পুলিশের এএসপি পরিচয় দিয়ে প্রায় ১৫ মাস

ধরে প্রেম চালিয়ে আসছিল। তারপর উভয়ে সিদ্ধান্ত নেয় বিয়ের।সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই মাসের ১৮ তারিখে আব্দুল আলীম

মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে ৩ লাখ ৫০ হাজার ৫শ’ টাকা দেনমোহর ধার্য করে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ঘর সংসার করতে থাকে।

গল্প করতে গিয়ে প্রতারক আব্দুল আলীম মেয়েটির পরিবারকে জানায়, সে রংপুর জেলার সৈয়দপুরের এক পুলিশ

ফাঁড়ির দায়িত্বে আছে। তখন মেয়েটির পরিবারের সন্দেহ হয় এবং আব্দুল আলীমকে জেরা শুরু করলে এক পর্যায়ে সে

স্বীকার করে তার পেশা বাদাম বিক্রেতা ও পাশাপাশি পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করে।পরে স্থানীয়দের সহায়তায়

মেয়েটির পরিবার থানা পুলিশে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রতারক আলীমকে গ্রেপ্তার করে। অপরদিকে, আলীম প্রাণভয়ে ৯৯৯ এ ফোন করে তাকে উদ্ধারের জন্য সহযোগীতা চায়।

বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (জেলা পুলিশের মুখপাত্র) ফয়সাল মাহমুদ এ প্রতিবেদককে বলেন,

ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। পাশাপাশি আমাদের সামাজিক সচেতনতার দিকটিও উঠে আসে। আমরা প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছি। তার বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *