তুরস্কে বিশাল সোনা ও রুপার খনি আবিষ্কার

তুরস্কে বিশাল এক সোনা ও রুপার খনি আবিষ্কৃত হয়েছে। পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ আগ্রিতে অবস্থিত এই খনিতে ২০ টন সোনা ও ৩.৫ টন রুপা মজুত রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তুরস্কের শিল্প ও প্রযু’ক্তিমন্ত্রী মোস্তফা

বারন্ক এ তথ্য জানান। আবি’ষ্কৃত সোনার মূল্য ১.২ বিলিয়ন ডলার ও রুপার মূল্য ২.৮ মিলিয়ন ডলার। এই খনি আবি’ষ্কার প্রে’সিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের দেশের অর্থনীতি ব্যাপক অবদান রাখবে বলে ধারণা করা

হচ্ছে। এই প্রকল্পে সরাসরি ৫০০ লোক নিয়োগ পাবে ও পরোক্ষভাবে দুই হাজার চাকরি সৃ’ষ্টি করবে। ২০২২ সালের শেষ দিকে এই খনি থেকে সোনা তোলা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। তুর’স্কের খনি খাতে ১৩ হাজার

লোক কাজ করছে। এ খাতে বি’নিয়োগের পরিমাণ ছয় বিলিয়ন ডলার। মন্ত্রী বলেন, ২০০০ সালের প্রথম দিকে তুরস্ক এক গ্রাম সোনাও উৎপাদন করত না। কিন্তু গত বছর ১৮টি সক্রিয় খনি থেকে ৪২ টন সোনা উত্তোলিত

হয়েছে। ২০০১ সালের আগে পর্যন্ত তু’রস্ক তার চাহিদার পুরো স্বর্ণ আমদানি করত। এখন খনি আ’বিষ্কৃত হওয়ায় বার্ষিক ২.৪ বি’লিয়ন ডলার সাশ্রয় হয়েছে। গত ডিসেম্বরে

আরেকটি বড় আ’বিষ্কার ঘটে তু’রস্কে। দেশটির মারমারা অঞ্চলে ৩.৫ মিলিয়ন আউন্স স্বর্ণের সন্ধান পাওয়া যায়। এর মূল্য ছয় বিলিয়ন ডলার। সূত্র : ইয়েনি সাফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *