ভারতের লাদাখ সীমান্তে ফের আগ্রাসী চীনাবাহিনী!

এক বছরেরও বেশি সময় ধরে পূর্ব লাদা’খে মুখোমুখি ভারত ও চীনের সেনাবাহিনী। গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষের পর পরিস্থিতি সবচেয়ে জটিল হয়ে ওঠে প্যাংগং হ্রদ সংলগ্ন ফিঙ্গার এলাকাগুলোতে। সেখানেই অল্পের জন্য যু’দ্ধের হাত থেকে রক্ষা পায় প’রমাণু শক্তিধর দুই দেশ।

তবে দু’পক্ষের আলো’চনার মাধ্যমে ফেব্রুয়ারি মাসে প্যাংগং থেকে ফৌ’জ সরিয়ে নিয়েছে দুই দেশ। এবার গোটা পূর্ব লাদাখ জু’ড়েই সেনা প্রত্যা’হারের উদ্দেশে আলোচনা চলছে দু’দেশের মধ্যে। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই প্রকাশ্যে এসেছে চীনা সেনাবাহিনীর উ’দ্বেগ’জনক কার্যকলাপ।

সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি লা’দাখ সী’মান্তের কাছেই বড়সড় মহড়া চা’লিয়েছে চীনের বি’মানবাহিনী। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, লাদা’খে সীমা’ন্তের ওপারে অন্তত ২২টি চীনা যু’দ্ধ’বি’মান মহ’ড়া চা’লিয়েছে। এর মধ্যে বেশ কিয়েকটি ছিল জে-১১ যু’দ্ধ’বিমা’ন যা সুখোই-২৭ বি’মানের আদলে তৈরি।

এছাড়া সাম’রি’ক ম’হড়ায় অংশ নিয়েছে লাল’ফৌজের জে-১৬ যু’দ্ধ’বিমান। জানা গেছে, আ’ধুনিকীকরণের পর হুটান, গারিগুনসা ও কাশগড় সেনা ঘাঁ’টি থেকে আকাশে পাড়ি দেয় চীনা যু’দ্ধবি’মান। এদিকে লা’লফৌজের এই আ’গ্রা’সী কার্যকলাপের ওপর কড়া নজর রেখেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

কোনওভাবেই দেশের সুরক্ষা নিয়ে গাফিলতি হবে না বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনী। ভারতীয় বিশ্লেষকদের দাবি, গত বছর গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় ফৌজের সঙ্গে সং’ঘ’র্ষে বেশ ধা’ক্কা খে’য়েছে চীন। কয়েক দশকের অবস্থান পালটে নয়াদিল্লি যে, এমন আ’ক্র’মণা’ত্ম’ক হয়ে উঠবে তা ভাবতে পারেনি বেইজিং। ফলে সীমান্তে চাপ তৈরির কৌশল হিসেবে সামরিক মহড়া চা’লাচ্ছে চীনা সেনাবাহিনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *