৬০ বছর পর যে মসজিদে হচ্ছে নামাজ চালু

তুরস্কের উত্তর-পশ্চি’মাঞ্চল কারস প্রদেশের প্রাচীন অ্যান নগরীর একটি মসজিদে দীর্ঘ ছয় দশক পর নামাজ চালু হতে যাচ্ছে। মূলত পুনসংস্কার কাজ সম্পন্ন না হওয়ায় দীর্ঘ ৬৪ বছর যাবত ঐ’তিহ্যবাহী ইবোল ম্যানু শাহর

মসজিদে কোনো নামাজ হয়নি। প্রাচীন অ্যান নগরীর পাহাড় পাদশেষে মসজিদটি অবস্থিত। স্থাপনাটি বিশ্ব ঐতিহ্য সংস্থা ই’উনেস্কোর অন্ত’র্ভূক্ত। একাদ্বশ শতাব্দিতে সেলজুক সম্রা’জ্যের সুলতান প্রথম মালিক শাহের

নির্দেশনায় তা নির্মাণ করা হয়। ১৯ শতাব্দিতে রুশ দখলদারিত্বের সময় মসজিদটি গুদা’মঘর হিসেবে ব্যবহৃত হতো। আগস্ট মাসের মধ্যে তা পুন’সংস্কার করে নামাজের জন্য উম্মুক্ত করার পরি’কল্পনা করা হয়। সংস্কৃতি ও

পর্যটন মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে বি’ভিন্ন বেসরকারি সংস্থার সহায়তায় এর কাজ এগিয়ে চলছে। সারহাত ডেভলপমেন্ট এজেন্সি মসজিদের কাজ দেখাশোনা করছে। সেরকা এজেন্সির মহাপরিচালক ইব’রাহিম তাশ দামির বলেন,

‘মসজিদ নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে। আ’নাতোলিয়া অঞ্চলে তুর’স্কের নির্মিত এটিই প্রথম মসজিদ। এ বছরের আগস্ট মাসে তাতে নামাজ চালু হবে।’ ঐতিহ্যবাহী এ মসজিদে ৬৪ বছর যাবত নামাজের কার্যক্রম বন্ধ আছে।

পুনসংস্কার কাজে মসজিদের দরজা, জানালা ও মিম্বার তৈরি করা হচ্ছে। মেহরাব নির্মাণের কাজও চলছে। শিগগির মসজিদের সুন্দর দৃশ্য সবাই দেখতে পাবে। তাছাড়া আনি নগরীর ধ্বং’সাব’শেষ ও প্র’ত্নতত্ত্ব অনুসন্ধানের

কাজ অব্যাহত আছে। বিশ্বের ই’তিহাসে প্রাচীন এ ধ্বংসাবেশের গুরুত্ব অপ’রিসীম। পাঁচ হাজার বছরের ২৩টি প্রাচীন সভ্যতার ইতিহাস অঞ্চলটি প্রত্যক্ষ করেছে। ২০১৬ সালে ১৫ জুলাই বিশ্ব ঐতিহ্য সংস্থা ই’উনেস্কোর তালিকা ভূক্ত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *