এবার দেশে মিললো আরেক ভ’য়াবহ ক’রোনার ভ্যারিয়েন্ট!

দেশে এবার প্রা’ণঘা;তী ক’রোনাভা’ইরাসের নাইজেরিয়ার ভ্যারিয়েন্টের (বি.১.৫২৫) অস্তিত্ব মিলেছে। দুটি বিভাগ থেকে মার্চ ও এপ্রিল মাসের সংগ্রহ করা নমুনার সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডাটার (জিআইএসএইড) ওয়েবসাইটে প্র’কাশিত এক গবেষণায় বিষয়টি উঠে এসেছে।

জিআইএসএইডের তথ্যানুযায়ী, এখন পর্যন্ত দেশের দুই বিভাগের ৮টি নমুনা পরীক্ষায় এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়ার ত’থ্য প্র’কাশিত হয়েছে। ঢাকার উত্তরা, আজিমপুর ক্যান্টনমেন্ট এলাকার পাশাপাশি সিলেটের সুনামগঞ্জ থেকে সংগ্রহ করা নমুনায় এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে।

নতুন ভ্যারিয়েন্ট প্রসঙ্গে সরকারের রো’গতত্ত্ব, রো’গ নিয়’ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) ড. মুশতাক হোসেন বলেন, যেকোনো সংক্রা’মক ব্যাধি এক দেশ থেকে আরেক দেশে যেতে পারে। তার জন্য আমাদের আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী পদক্ষেপগুলো জো’র দিয়ে অনুসরণ করতে হবে।

বিশেষ করে বন্দরগুলোতে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা, সংক্র’মণ নিয়ে আসতে পারে এমন লোকদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা এবং স্থল, নৌ, বিমানবন্দরগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা। দেশের ভেতরে যদি সংক্র’মণ হয়, সেটা শনা’ক্তকরণের ব্যবস্থা রাখা, সেগুলোর সার্ভিলেন্সের ব্যবস্থা রাখা, এগুলো জো’র দিয়ে করতে হবে।

এই প্রসঙ্গে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও কানাডার সিনিয়র পলিসি বিশ্লেষক ডা. শাহরিয়ার রোজেন বলেন, নাইজেরিয়ার ভ্যারিয়েন্টের বিষয়ে এখনও ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন বলা হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে এর সংক্র’মণ ক্ষ’মতা অনেক বেশি।

একই সঙ্গে এই ভ্যারিয়েন্টের আক্রা’ন্তদের মাঝে মৃ’ত্যুহারও বেশি। এটি নিয়ে যেহেতু গবেষণা চলছে, অবশ্যই এর প্র’ভাব বোঝা যাবে। তিনি বলেন, ক’রোনাভা’ইরাসের এমন বি’পজ্জনক ধরনের উদ্ভব ঘ’টেছে যুক্তরাজ্যে, সাউথ আফ্রিকা, ব্রাজিল, যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া, নিউইয়র্কে এবং আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে।

এদের মাঝে সবচেয়ে বি’পদজনক হলো যুক্তরাজ্য, সাউথ আফ্রিকা এবং ব্রাজিলের ভ্যারিয়েন্ট। এই ধ’রনগুলোর সংক্র’মণ ক্ষ’মতা অত্যন্ত বেশি। জিআইএসএইডের ত’থ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ১১ মার্চ সিলেটের সুনামগঞ্জ থেকে সংগ্রহ করা নমুনা সিকোয়েন্সিং করে নাইজেরিয়ার ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়।

২৪ বছর বয়সী এক ব্যক্তির কাছ থেকে এই নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এ বিষয়ে ৭ এপ্রিল জিআইএসএইডে দেশের বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইডিইএসএইচআই (আইদেশী) ল্যাবের পক্ষ থেকে ত’থ্য জমা দেওয়া হয়। ১৬ মার্চ ঢাকার উত্তরা থেকে সংগ্রহ করা নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া যায়।

২৩ বছর বয়সী এক মে’য়ের নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এই নমুনা সংগ্রহ করা হয় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল মেডিসিন (এনআইএলএমআরসি) থেকে। বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পক্ষ থেকে এই ত’থ্য ৮ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়।

১৬ মার্চ ঢাকার আজিমপুর থেকে সংগ্রহ করা নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া যায়। ৪২ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এই নমুনা সংগ্রহ করা হয় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল মেডিসিন (এনআইএলএমআরসি) থেকে।

বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পক্ষ থেকে এই তথ্য ১০ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়। ১৪ মার্চ ঢাকা থেকে সংগ্রহ করা নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া যায়। ২৪ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়।

এই নমুনাও সংগ্রহ করা হয় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল মেডিসিন (এনআইএলএমআরসি) থেকে। বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পক্ষ থেকে এই তথ্য ১০ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়।

১৪ মার্চ ঢাকা থেকে সংগ্রহ করা নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া যায়। ঢাকা ডেন্টাল কলেজ থেকে ৩৬ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এই নমুনা সংগ্রহ করা হয় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারেল মেডিসিন (এনআইএলএমআরসি) থেকে। বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পক্ষ থেকে এই ত’থ্য ১১ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়।

৬ এপ্রিল ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট এলাকা থেকে সংগ্রহ করা নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া যায়। ৬০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এই নমুনা সংগ্রহ করা হয় আর্মড ফোর্সেস ইনস্টিটিউট অফ প্যাথলজি (এএফআইপি) থেকে। এর সিকোয়েন্সিং করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পক্ষ থেকে ১৪ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়।

৬ এপ্রিল ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট এলাকা থেকে সংগ্রহ করা আরেকটি নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া যায়। ৫৩ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এই নমুনা সংগ্রহ করা হয় আর্মড ফোর্সেস ইনস্টিটিউট অফ প্যাথলজি (এএফআইপি) থেকে। এর সিকোয়েন্সিং করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) পক্ষ থেকে ১৫ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়।

৩ এপ্রিল ঢাকা থেকে সংগ্রহ করা আরেকটি নমুনা সিকোয়েন্সিং করে বি.১.৫২৫ পাওয়া গেছে। ৫৮ বছর বয়সী এক ব্যক্তির নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এই নমুনার সিকোয়েন্সিং করে চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ১৯ এপ্রিল জিআইএসএইডে জমা দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, নাইজেরিয়ার এই ভ্যারিয়েন্টের সর্ব প্রথম উপস্থিতি পাওয়া যায় যুক্তরাজ্যে। পরবর্তীতে ফেব্রুয়ারির ১৫ তারিখ নাইজেরিয়ায় এটি সবচেয়ে বেশি ছ’ড়িয়ে পড়ে। ২৪ ফেব্রুয়ারির দিকে যুক্তরাজ্যে ৫৬টি নমুনার সিকোয়েন্সিংয়ে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। ডেনমার্কে ১৪ জানুয়ারি থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ১১৩টি নমুনা সিকোয়েন্সিং করে এই ভ্যারিয়েন্টের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এর মধ্যে সাতটি নমুনা পাওয়া যায় সরাসরি নাইজেরিয়া থেকে আসা ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষা করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *