করােনায় আরও ভয়াবহ অবস্থা ভারতে!

ভারতে দৈনিক সংক্রমণ একের পর এক রেকর্ড ভাঙছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দৈনিক সংক্রমণ আগের সব রেকর্ড ভেঙেছে। শনিবার সকালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া হিসেব অনুযায়ী, নতুন করে একদিনেই আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৩৮৪ জন। এর মধ্য দিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লাখ ছাড়িয়েছে। গেল ২৪ ঘণ্টায় সেখানে মারা গেছে ৭৯৪ জন। তাতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৪৩৬ জন।

করোনা পরিস্থিতি সবচেয়ে বেশি খারাপ রূপ ধারণ করেছে মহারাষ্ট্রে। সেখানে গেল ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৬০ হাজার জন। এই রাজ্যে করোনা টিকারও সংকট দেখা দিয়েছে। ভারতে করোনা পরিস্থিতি দ্রুত অবনতি হওয়ায় ভারতের বিভিন্ন রাজ্য ও শহরে রাত্রিকালিন কারফিউ জারি করা হচ্ছে। জারি করা হচ্ছে সাপ্তাহান্তিক লকডাউন। তারপরও লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ।

এদিকে, সংক্রমণ বাড়লেও দিল্লি লকডাউনের পথে হাঁটবে না বলে জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তবে সংক্রমণ রুখতে প্রশাসন আরও কড়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি। প্রতিবেশী পশ্চিমবঙ্গেও করোনার গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখি। ভোটের মুখে রাজ্যটিতে করোনা সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। তার মধ্যে সর্বাধিক সংক্রমিত কলকাতায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে শনাক্ত হয়েছে ৩, ৬৪৯ জন। তবে বেসরকারি সূত্রে খবর সংখ্যাটা সাড়ে পাঁচ হাজারেরও বেশি। সরকারি মতে মৃত্যু হয়েছে আট জনের। সেখানে দৈনিক সংক্রমণের হারও এক লাফে পৌঁছে গিয়েছে ১০.১০ শতাংশে। রাজ্যের চিকিৎসকরা বলছেন, যে হারে শনাক্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে ভোট শেষ হওয়ার আগেই দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা দশ হাজার ছাড়িয়ে যাবে।

ভারতে বর্তমান করোনা রোগীর ৭২ শতাংশই রয়েছে মাত্র পাঁচটি রাজ্যে। এগুলো হচ্ছে মহারাষ্ট্র, ছত্তিশগড়, কর্ণাটক, উত্তর প্রদেশ ও কেরালা। আবার বর্তমান রোগীর মধ্যে ৫১ শতাংশই আছে শুধু মহারাষ্ট্রে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *