সরকার বেশিদিন টিকবে না: খন্দকার মোশাররফ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা: একাদশ জাতীয় সংসদের সরকার বেশি দিন টিকবে না বলে মনে করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, ৩০ ডিসেম্বর দেশে কোনো ভোট হয়নি। আগের রাতেই ভোট হয়েছে, তা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প থেকে শুরু করে সবাই জানেন।

আজ শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটশনে এক প্রতিবাদ সভায় তিনি একথা বলেন। চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ কারাবন্দি নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে দেশব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসাবে এই সভার আয়োজন করা হয়।

মোশাররফ বলেন, ‘এবার ৮০ ভাগ মানুষ ধানের শীষে ভোট দেয়ার জন্য প্রস্তুত ছিলেন, যেটি সরকারের কাছেও গোপন থাকেনি। এজন্য তারা ২৯ ডিসেম্বর রাতেই ভোট সম্পন্ন করেছে।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতাদের বাইরে রেখে মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়েছে। আর ভোটবিহীন নির্বাচন হয়েছে। এই দুটি অস্বাভাবিক ঘটনার কারণেই এই সরকার বেশি দিন টিকতে পারবে না।’

খালেদা জিয়াকে বেশি দিন আটকে রাখা যাবে না উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘মানুষ ধানের শীষে ভোট দিতে পারলে, এতদিনে খালেদা জিয়া মুক্ত হতেন। সরকার জানতো দিনের বেলায় ভোট হলে আওয়ামী লীগ জয়ী হতে পারবে না। এজন্য তারা আগের রাতে ভোট কেটে নিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এবারের নির্বাচনে বিএনপি পরাজিত হয়নি। আওয়ামী লীগ পরাজিত হয়ছে। কারণ, তাদের কেউ নির্বাচিত হয়ে সংসদে যেতে পারেননি।’

বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজপথে ঘুরে দাঁড়াতে হলে বিএনপি পুনর্বাসন করতে হবে বলে পরামর্শ দেন মোশাররফ হোসেন, ‘আমাদের অবশ্যই ঘুরে দাঁড়াতে হবে। এজন্য দল পুর্নবাসন করতে হবে। বিগত দিনে দলের যারা নির্যাতিত হয়েছেন, তাদের পাশে নেতা এবং যারা এবারের প্রার্থীদের দাঁড়াতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ ও সৎ সাহস নিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে আমরা ঘুরে দাঁড়াব। এজন্য সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় আরও বক্তব্য দেন, স্থায়ী কমিটি সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আব্দুল মঈন খান, ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমদ আজম খান, আব্দুল মান্নান, শামসুজ্জামান দুদু, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।